1. admin@dailydigantor.com : admin :
আক্কেলপুরে ইউপি সদস্যের কান্ড – দৈনিক দিগন্তর
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:২৩ পূর্বাহ্ন

আক্কেলপুরে ইউপি সদস্যের কান্ড

দৈনিক দিগন্তর ডেস্ক :
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২ মার্চ, ২০২৪

আক্কেলপুর (জয়পুরহাট) প্রতিনিধিঃজয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার সোনামুখী ইউনিয়ন পরিষদের ৭নম্বর ওর্য়াডের সদস্য সাদ্দাম হোসেন তাঁর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করায় লোকজনের সামনে কাঁচের গ্লাস ভেঙে সেই ভাঙা গ্লাসের অংশ দিয়ে অভিযোগকারী বৃদ্ধের কানে আঘাত করেছে।এতে বৃদ্ধের বাম কানের নিচের অংশ কেটে গেছে। আহত বৃদ্ধকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।গত বুধবার বিকেল সাড়ে পাঁচটায় জাফরপুর বাস স্ট্যান্ড বাজারে এ ঘটনা ঘটেছে।আহত বৃৃদ্ধের নাম নূর মোহাম্মদ তোতা (৬৬)। তিনি একই ইউনিয়নের রামশালা আবাসন প্রকল্পের বাসিন্দা।প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত বৃদ্ধ ও তাঁর স্বজনদের ভাষ্য, বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদ তোতার সঙ্গে তাঁর প্রতিবেশী মহিফুর ও তাঁর স্ত্রী সোনিয়ার সঙ্গে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তাঁরা স্বামী-স্ত্রী বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদকে বেধড়ক মারপিট করেন। এতে বৃদ্ধ গুরুত্বর আহত হন। তিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি ছিলেন। ইউপি সদস্য সাদ্দাম হোসেন হুকুমে মহিফুর ও সোনিয়া তাঁকে মারধর করেন বলে থানায় লিখিত অভিযোগও করেন। এতে ইউপি সদস্য সাদ্দাম হোসেন বৃদ্ধের চরম ক্ষিপ্ত ছিলেন। বুধবার বিকেলে বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদ তোতা চা পান ও ওষুধ কিনতে জাফরপুর বাজারে আসেন। তিনি চা পান করে চায়ের স্টলের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এসময় ইউপি সদস্য সাদ্দাম হোসেন তাঁকে দেখে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে । চায়ের স্টল থেকে একটি কাঁচের গ্লাস নিয়ে ভেঙে ফেলে লোকজনের সামনে সেই ভাঙা কাঁচের গ্লাস দিয়ে বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদের কানে আঘাত করেন। এতে বৃদ্ধের কানের নিচের অংশ কেটে রক্ত ঝরছিল। স্থানীয় লোকজন ও স্বজনেরা এসে বৃদ্ধকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে আসেন।উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গিয়ে দেখা গেছে, পুরুষ ওর্য়াডের বারান্দায় বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদ শুয়ে আছেন।তাঁর বাম কানে বান্ডিজ রয়েছে। বৃদ্ধ নূর মোহাম্মদ বলেন, ইউপি সদস্য সাদ্দাম হোসেনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছিলাম। এঘটনায় সাদ্দাম লোকজনের সামনে কাঁচের গ্লাস ভেঙে কানে আঘাত করে। এতে আমার কান কেটে গেছে। আমাকে মেরে ফেলবে হুমকি দিচ্ছে। এঘটনায় থানায় মামলা করব।ইউপি সদস্য সাদ্দাম হোসেন বলেন, নূর মোহাম্মদ মাদক ব্যবসা করেন। আমি তাঁকে মাদক ব্যবসা করতে নিষেধ করেছিলাম। এঘটনায় আমার বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা লিখিত অভিযোগ করেছিলেন। বুধবার বিকেলে নূর মোহাম্মদ আমাকে জাফরপুর বাজারে দেখে উল্টো গালিগলাজ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কাঁচের গ্লাস দিয়ে মেরেছি।আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মোঃ সাফিউর রহমান বলেন, কাঁচের গ্লাসের আঘাতে বৃদ্ধ নুর মোহাম্মদের বাম কান কেটে গেছে। কানে তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে।
আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। এঘটনায় এখনো মামলা হয়নি।

 

Facebook Comments Box
সংবাদটি শেয়ার করুন :
এ জাতীয় আরও সংবাদ

ফেসবুকে আমরা